Friday , July 20 2018
Home / আন্তর্জাতিক / যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যুদ্ধটা ‘অনিবার্য’

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যুদ্ধটা ‘অনিবার্য’

যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার অব্যাহত হুমকি ও সামরিক প্রদর্শনীর কারণে কোরীয় উপদ্বীপে যুদ্ধ অনিবার্য বলে দাবি করেছে উত্তর কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

গত বুধবার এক বিবৃতিতে উত্তর কেরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, এ হুমকির মুখে যুদ্ধটা এখন অনিবার্য হয়ে উঠছে। কোরীয় উপদ্বীপে যুদ্ধের পরিবেশ সৃষ্টিতে মার্কিন কর্মকর্তাদের ‘উসকানিমূলক মন্তব্যকেও’ মুখপাত্র দায়ী করেছেন।

সম্প্রতি মার্কিন বিমান বাহিনী ও দক্ষিণ কোরিয়া এফ-১৬ ফাইটার যৌথভাবে কোরীয় উপদ্বীপে ‘ভিজিলেন্ট এস’ নামে মহড়া দিয়েছে। তার পরিপ্রেক্ষিতে এমন মন্তব্য করল উত্তর কোরিয়া।

উত্তর কেরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যে মুখপাত্র এই মন্তব্য করেছেন বলে শোনা যাচ্ছে, তার নাম প্রকাশ করা হয়নি। তিনি আরও মন্তব্য করেছেন, সিআইএ প্রধান মাইক পম্পেওসহ একাধিক উচ্চপদস্থ মার্কিন কর্মকর্তারা প্রায়ই ‘উগ্র মন্তব্য’ করছে। যা থেকে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধের মনোভাব বোঝা যায়। পম্পেও রবিবার বলেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন জানেন না, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক বিচারে তার পরিস্থিতি ঠিক কতটা সঙ্গীণ ? উত্তর কোরিয়ার মুখপাত্রটি পম্পেওর বিরুদ্ধে সরাসরি প্ররোচনার অভিযোগ করেন, কেননা, পম্পেও ‘নির্লজ্জভাবে আমাদের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের সমালোচনা’ করেছেন, যিনি কিনা ‘আমাদের জনগণের হৃদপিণ্ড’। ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘এখন বাকি প্রশ্ন হলো, কখন যুদ্ধ শুরু হবে তবে আমরা যুদ্ধ চাই না, কিন্তু যুদ্ধ থেকে গা ঢাকা দেওয়ার চেষ্টা করব না।

এদিকে সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার প্রতিক্রিয়ায় হোয়াইট হাউজের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা এইচ আর ম্যাকমাস্টার চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুদ্ধের সম্ভাবনা ‘দিন দিন বেড়েই চলছে’ বলে মন্তব্য করেছেন। রোববার রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহামও যুদ্ধের আশঙ্কায় দক্ষিণ কোরিয়া থেকে মার্কিন সেনাদের স্ত্রী-সন্তানদের সরিয়ে আনতে পেন্টাগনের প্রতি অনুরোধ জানান।

Check Also

কিম-মুনের বৈঠক ছাপিয়ে ঠান্ডা নুডলসে তোলপাড়

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন যুদ্ধবিরতি রেখা অতিক্রম করে দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রবেশ করে ইতিহাস …