Tuesday , July 17 2018
Home / বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি / বিল গেটসের সেই অনুমান এখন সত্যি হল

বিল গেটসের সেই অনুমান এখন সত্যি হল

ভবিষ্যতে যেসব প্রযুক্তি ব্যবসা বেড়ে উঠবে, এমন ১৫টি ব্যবসার কথা বলেছিলেন মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। ১৯৯৯ সালে প্রকাশিত তাঁর বিজনেস দ্য স্পিড অব থট বইয়ে এসব ব্যবসার কথা উল্লেখ করা হয়েছিল। দুই দশকের কাছাকাছি সময়ে এসে সেই সময় বিল গেটসের করা অনুমানগুলো অনেকাংশেই সত্য হয়েছে।

সেসব অনুমানের কয়েকটি তুলে ধরা হলো এখানে:

দাম তুলনা করা যাবে ওয়েবসাইটে

বিল গেটসের অনুমান: স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে দাম তুলনা করার সেবা গড়ে উঠবে। লোকজন বিভিন্ন ওয়েবসাইটে পণ্যের দাম দেখতে পারবেন। আর তাতে খুব সহজেই প্রতিটি শিল্পের কম দামি পণ্যটি খুঁজে নিতে পারবেন।

বর্তমান অবস্থা: যে কেউ এখন গুগল কিংবা অ্যামাজনসহ বিভিন্ন সাইটে দাম দেখে নিতে পারছেন। এ ছাড়া কোথায় কী কী দামে একই পণ্যটি পাওয়া যায়, তা দেখার জন্য নেক্সট্যাগ এবং প্রাইস গ্রাভারের মতো দাম তুলনা করার বিভিন্ন ওয়েবসাইট রয়েছে।

মোবাইল যন্ত্র
বিল গেটসের অনুমান: লোকজন ছোট যন্ত্র বহন করবেন এবং তা হবে স্পর্শ প্রযুক্তির। যেখানে সংবাদ ও বই পড়া, পুঁজিবাজারের তথ্য পাওয়াসহ নানা সুবিধা পাওয়া যাবে।

বর্তমান অবস্থা: এখন তো স্মার্টফোন, স্মার্ট ওয়াচের জয়জয়কার।

সামাজিক মাধ্যম
বিল গেটসের অনুমান: পরিবার এবং বন্ধুদের জন্য ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট সর্বজনীন হবে। যেখানে চ্যাট করা এবং ইভেন্টের পরিকল্পনা করা যাবে।

বর্তমান অবস্থা: এর সবচেয়ে ভালো উদাহরণ হলো ফেসবুক। বর্তমানে এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ২০০ কোটি ব্যবহারকারী রয়েছে। এ ছাড়া অন্যান্য সামাজিক মাধ্যম স্ন্যাপচ্যাট, ইনস্টাগ্রাম হোয়াটসঅ্যাপ এবং ফেসবুক মেসেঞ্জারের বিস্তৃতি তো গেটসের ধারণাকেও পেরিয়ে গেছে।

নিয়োগপ্রক্রিয়া অনলাইনে
বিল গেটসের অনুমান: নিজেদের দক্ষতা, আগ্রহ ও প্রয়োজন অনুযায়ী লোকজন কাজ খুঁজতে পারবেন অনলাইনে।

বর্তমান অবস্থা: পেশাজীবীদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম লিংকড-ইনে এর চেয়েও বেশি সুবিধা রয়েছে। এ ছাড়া তো চাকরি খোঁজার অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে।

স্মার্ট বিজ্ঞাপন
বিল গেটসের অনুমান: যন্ত্রেই দেখা যাবে স্মার্ট বিজ্ঞাপন। বর্তমান অবস্থা: ফেসবুক কিংবা গুগল যাই বলেন না কেন, বর্তমানে অধিকাংশ ওয়েবসাইটেই প্রবেশ করলে ডিজিটাল বিজ্ঞাপন দেখা যায়।

বিজনেস ইনসাইডার

Check Also

বিশ্ববাসীকে চমকে দিলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী!

জিকা ভাইরাস, ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়াসহ যে কোনো প্রাণঘাতী জিবাণুবাহী মশাকে সহজেই নিধন করার যন্ত্র আবিষ্কার করে …