Monday , June 25 2018
Home / স্বাস্থ ও চিকিৎসা / নারকেলের পানি পান করার ১০ উপকারিতা

নারকেলের পানি পান করার ১০ উপকারিতা

নারকেলের শ্বাস, নারকেলের পানি প্রায় সবারই প্রিয় । কিন্তু আপনি জানেন কি শুধু স্বাদেই নয় , সুস্বাস্থ্যের জন্য নারকেলের পানি খুবই উপকারি? পাঠকের সুবিধার্থে টুয়েন্টিফোর নেটওয়ার্ক আলোচনা করছে নারকেলের পানি পান করার ১০ টি উপকারি দিক।
উচ্চ রক্তচাপঃ উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশান হতে রক্ষা করে আমাদের হৃদপিন্ডকে সুরক্ষিত রাখে নারকেলের পানি। বেশ কয়েকটি গবেষণায় ব্দেখা গেছে , নারকেলের পানি আমাদের হৃদপিন্ডকে নানা রকম রোগ হতে রক্ষা করে।

দেহকে স্লিম রাখেঃ নারকেলের পানি দেহের বিপাক ক্রিয়ায় সহায়তা করে। প্রতিদিনব দেহে সঞ্চিত ফ্যাটকে ব্যবহার করে তাপ উতপন্ন করতে সহায়তা করে। ফলে দেহে চঋ তৈরী হতে পারে না। দেহ স্লিম ও সুন্দর থাকে। বিশেষ করে নারকেলের পানিতে উপ্সথিত ম্যাংগানিজম দেহে চর্বি জমতে দেয় না।

কিডনির পাথর দূর করেঃ প্রথমত তাদের কিডনিতে পাথর হয়, যারা খুব কম পানি পান করেন। নারকেলের পানি আমাদের কিডনিতে সেই বিষ্ক্রিয়া হতে দেয় না যার কারণে কিডনিতে পাথর হয়। গবেষণকায় দেখা গেছে, সাধারণ পানির চাইতে নারকেলের পানি আরো বেশি কার্যকর। এছাড়াও প্রাথমিক পর্যায়ে কিডনির পাথর দূরিভূত করে নারকেলের পানি।

ডায়রিয়ায় সহায়ক পানীয়ঃ ডায়রিয়া হলে যেহেতু দেহে পানি স্বল্পতা দেখা দেয়, তাই চিকিতসকরা রোগীদের বেশি করে পানি পান করতে বলেন। তবে স্বাভাবিক পানির চাইতে এই সময় নারজকেলের পানি পান করা অধিক উপকারী । কেনন আ ডায়রিয়ার ফলে দেহের হারিইয়ে যাওয়া ইলেক্ট্রনিক্স ফিরিয়ে আনতে সহায়তা করে। তাই এই সময় বেশি করে নারকেলের পানি পান করতে হবে।

পরিপাক তন্ত্রকে সুস্থ রাখেঃ আমাদের ভালো ও স্বাভাবিক খাদ্য পরিপাকের জন্য পরিপাক তন্ত্রটি সুস্থ থাকা জরুরি। এতি আমাদের পরিপাক তন্ত্রকে সুস্থ রাখতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। কেননা , নারকেলের পানিরে খুব কম পরিওমাণ ক্যালরি থাকে, এবং প্রয়োজনীয় মিনারেল এবং সহজপাচ্য ফাইবার থাকে যা আমাদের পরিপাক ক্রিয়াকে স্বাভাবিক রাখে।

হাড়কে মজবুত রাখেঃ আমাদের দেহের হাড়্গুলোকে মজবুত রাখতে দেহের মিনারেলের পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও ম্যাগ্নেসিয়াম প্র্যজন হয়। নারকেলের পানিতে প্রচুর পরিমানে ক্যালসিয়াম ও ম্যাগনেসিয়াম থাকে। নিয়মিত নারকেলের পানি পান করার ফলে আমাদের দেহের হাড় মজবুত হয়ে ওঠে।

ওজন কমাতে সহায়তা করেঃ নিয়মিত ব্যায়াম করার পর ও খাদ্যাভ্যাস ঠিক না থাকলে ওজন কমাণো সম্ভব নয়। নিয়মিত নারকেলের পানি পান করার ফলে আমাদের দেহ বেশক্ষন সতাজ থাকে, ফলে আমাদের ক্ষুধা কম লাগে। তাই দিনের ক্যালরির গ্রহন করা হয় কম। তাই সহজেই ওজন কমান যায়।

ডায়াবেটিক প্রতিরোধে সহায়তা করেঃ নারকেলের পানিতে প্রাকৃতিক চিনি থাকে। কিন্তু অদ্ভুতভাবে এটি রক্তে সুগার না বাড়ইয়ে কমিয়ে দেয়। তাই যারঃ য়া ডায়াবেতিকে ভুগছেন তাদের জন্য নারকেলের পানি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন।

রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখেঃ দেহের রক্তচাপকে স্বাভাবিক রাখতেও নারকেলের পানি অত্যন্ত কার্যকরী উপাদান হিসেবে কাজ করে।

স্মৃতিশক্তি বাড়ায়ঃ বাচ্চাদের মাঝে এক গবেষনায় দেখা গেছে যে, অন্য বাচ্চাদের চাইতে নিয়মিত নারক্লের পানি পাঙ্কারী শিশুরা বেশি মনে রাখতে পারে। তাই যদি মনে করেন, আপনার স্মৃতিশপক্তি কমে যাচ্ছে তবে খাদ্যাভ্যাসে নারকেলের পানি যোগ করুন।

তাছাড়া নারকেলের পানি আমাদের দেহকে সতেজ রাখে, ফলে রাতে ঘুম হয় ভালো। এটি চা কফির চাইতে অনেক উত্তম পানীয় । দেহের ক্লান্তি দূর করে দ্রুত কর্মক্ষম করতে নারকেলের পানি গুরুত্বপুর্ণ ভুমিকা রাখে। নারকেলের পানি নিয়মিত পান করলে ত্বক সুন্দর থাকে, একই সাথে খুব জ্বরের সময় তাপ নিয়ন্ত্রনে এটি খুব উপকারি।

সম্পাদনায়ঃ জান্নাতুল মাওয়া অনন্যা

Check Also

স্ট্রোকের ৭ লক্ষণ

স্ট্রোককে এক কথায় বলা যায় মস্তিস্কে রক্তক্ষরণ। স্ট্রোকের ফলে মস্তিস্কের নালীগুলোতে অক্সিজেন সরব্রাহ বন্ধ হয়ে …