Tuesday , July 17 2018
Home / এক্সক্লুসিভ / কাঁদলেন-হাসলেন মুশফিক

কাঁদলেন-হাসলেন মুশফিক

মুশফিকুর রহিম সুযোগ পেলেই অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ান। অসহায় মানুষকে মনের অন্তরতল থেকে জানান সহমর্মিতা।

এবার মুশফিকুর রহিম গেলেন কল্যাণপুরের পাইকপাড়ায় অবস্থিত ‘চাইল্ড অ্যান্ড ওল্ড এইজ কেয়ার’ বৃদ্ধাশ্রমে।

মঙ্গলবার মিরপুরে হালকা রানিং করেই সেখানে চলে যান তিনি। সেখানে গিয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন এক বৃদ্ধার গান শুনলেন। শুনলেন তাদের অসহায়ত্বের গল্প। তিনি হয়ে উঠলেন মানবিকতার এক মূর্ত প্রতীক।

‘চাইল্ড অ্যান্ড ওল্ড এইজ কেয়ার’ বৃদ্ধাশ্রমে ছোট চারটি কক্ষে পুরুষ ও মহিলা মিলে মোট ২২ জন থাকেন। যিনি মুশফিককে গান শুনিয়েছেন সেই বৃদ্ধার নাম কেউ জানে না! খুব বেশি লাফালাফি করেন বলে ‘লাফা’ নামেই ডাকেন সবাই।

মুশফিককে বৃদ্ধাশ্রমের কেউ চিনতে পারেননি। সেখানকার পুরুষ ও মহিলারা ভেবেছেন কেউ একজন দেখতে এসেছেন। আর সেটাতেই তারা আপ্লুত। মুশফিকও আপ্লুত।

তিনি বলেন, তারা যে জায়গায় আছেন বা যে সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে এসেছেন, তাতে আমাদের চেনারও কথা নয়। কেউ নো কেউ তো এসেছিল, এটাই অনেক বড় ব্যাপার। তাদের দেখে বুঝতে পারছি আমরা কত ভাল আছি। আরও বড় বড় কাজের সাথে যেন জড়িত থাকতে পারি, সেটিই চাই।

মুশফিক যে দৃষ্টান্ত দেখালেন তা অনন্য। অথচ আমাদের সমাজে আর্থিক সচ্ছল ব্যক্তিদের ওভাব নেই। ‘আমি চাইব তারাও এগিয়ে আসুক। বৃদ্ধ যারা আছেন, তারা অনেক কষ্টে আছেন। তারা যদি শেষ সময়টা একটু ভাল কাটিয়ে যেতে পারেন তাহলে এরচেয়ে ভাল কিছু আর হয় না। চেষ্টা থাকবে তাদের সঙ্গে সময় কাটানোর এবং সাহায্য করা।

Check Also

ভারতীয় এই মুসলিম চা-বাগান কর্মী যে কারণে রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মানে ভূষিত হন, জানলে অবাক হবেন

করিমুল হক পশ্চিমবঙ্গের উত্তরাঞ্চলীয় জলপাইগুড়ি জেলার মালবাজারে চা বাগানের একজন কর্মী। তার থেকেও বড় পরিচয়, …